ঢাকাসোমবার , ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

খুলনায় মুখে সুপার গ্লু ও টেপ লাগিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ

নিউজ পোর্টাল ২৪
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪ ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

খুলনার পাইকগাছায় চুরি করতে এসে চোখ-মুখে সুপার গ্লু (আঠা) ও মুখে টেপ লাগিয়ে এক গৃহবধূকে (৪৫) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সকালে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) ভোরে উপজেলার রাড়ুলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র ও ভুক্তভোগীর স্বজনরা জানায়, ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর স্বামী ব্যবসার কাজে বাইরে থাকায় তিনি বাড়িতে একা ছিলেন। রোববার রাত ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে কে বা কারা মই দিয়ে বাড়ির ছাদে উঠে সিঁড়ির দরজা শাবল দিয়ে ভেঙে শোবার ঘরে প্রবেশ করে। এরপর গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে সুপারগ্লু (আঠা) ও মুখে টেপ লাগিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এ সময় ভুক্তভোগীকে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করা হয়। পরে একজোড়া স্বর্ণের দুল ও বাড়িতে থাকা ২ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় চোর। এ সময় গৃহবধূর চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার ও স্বামীকে খবর দেন। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সকালে তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের (ওসিসি) কো-অর্ডিনেটর ডা. সুমন কুমার রায় বলেন, ওই রোগীকে শারীরিকভাবে আহত করা হয়েছে। তিনি এখন সার্জারি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। একটু সুস্থ হলে তাকে ওসিসিতে আনা হবে।

পাইকগাছা থানার ওসি ওবায়দুর রহমান বলেন, গৃহবধূকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

খুলনার পুলিশ সুপার মো. সাঈদুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। আশা করছি অতি অল্প সময়ের মধ্যে রহস্য উদঘাটন ও অপরাধীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবো।