ঢাকাSaturday , 11 September 2021

কনস্টেবল পদে লিখিত পরীক্ষায় ভাল রেজাল্ট করতে জেনে নিন ৪টি বিষয়

Link Copied!

কনস্টেবল পদে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে চাইলে লিখিত পরীক্ষায় ভাল করার কোন বিকল্প নেই। ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট সময়ে এই পরীক্ষায় মূলত বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ গণিত ও সাধারণ বিজ্ঞান এই ৪ টি বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে।

লিখিত পরীক্ষার নিয়ম :

লিখিত পরীক্ষায় পূর্ণমান থাকবে ৪০। এরমধ্যে সাধারণত বাংলা ১৫, ইংরেজি ১৫ এবং সাধারণ গণিত থেকে ১০ নম্বরের প্রশ্ন থাকে। সপ্তম থেকে দশম শ্রেণির বোর্ড নির্ধারিত পাঠ্য বই থেকেই প্রশ্ন করা হয়। এক্ষেত্রে কমপক্ষে ৪৫ শতাংশ নম্বর পেতে হতে হবে

১. বাংলা বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক :

যেহেতু এসএসসি পাশের পর কনস্টেবল এর পরীক্ষায় বসতে হয়, সেহেতু অষ্টম থেকে দশম শ্রেণির বাংলায় পঠিত বিষয়গুলো বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। বর্ণনামূলক প্রশ্ন যেমন- ভাব-সম্প্রসারণ/সারাংশ লিখন/চিঠি পত্র/দরখাস্থ/সংক্ষিপ্ত রচনার পাশাপাশি নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন ও থাকতে পারে।

সংক্ষিপ্ত ও ছোট প্রশ্নের জন্য ব্যাকরণের খুব কমন বিষয় যেমন- সন্ধি/সমাস/বাগধার/এক কথায় প্রকাশ/প্রত্যয়/পারিভাষিক শব্দ/বানান রীতি/উপসর্গ-অনুসর্গ ইত্যাদি দেখা যেতে পারে। এ বিষয়ে প্রস্তুতির জন্য নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণের বোর্ড বইটি সহায়ক হবে।

২. ইংরেজি বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক :

ইংরেজিতেও বাংলা বিষয়ের মত বর্ণনামূলক প্রশ্ন। যেমন- Paragraph/Letter/Application লিখতে বলা হতে পারে। এর সাথে English Grammar থেকে ভিন্ন ভিন্ন রকমের ক্যাটাগরিতে যেমন- Fill in the Blanks (with/without clues)/ Grammatical Correction ইত্যাদি বিষয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে।

ইংরেজি গ্রমার বিষয়ে ভাল করার জন্য Article, Tense, Part of Speech, Voice, Narration, Idioms and Phrase ইত্যাদি বিষয়ে প্রস্তুতি নেয়া প্রয়োজন।

৩. সাধারণ গণিত বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক :

সপ্তম থেকে দশম শ্রেণির গণিত সিলেবাসের উপর প্রস্তুতি নিতে হবে। পাটিগণিতের কমন বিষয় যেমন- শতকরা, সরল, সুদ কষা, ঐকিক নিয়ম, সরল, ভগ্নাংশ ইত্যাদি এবং বীজগণিতের ক্ষেত্রে গাণিতিক রাশি, ফাংশন, লগারিদম, বাস্তব সংখ্যা ইত্যাদি বিষয়ের অংকগুলো ভালো করে অনুশীলন করতে হবে।

৪. সাধারণ বিজ্ঞান বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক :

৭ম, ৮ম ও ৯ম-১০ম শ্রেণির সাধারণ বিজ্ঞান বই থেকে পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন ও জীব বিজ্ঞানের অংশ ভালভাবে দেখতে হবে। এর বাইরে প্রযুক্তির খুব সাধারণ বিষয় গুলোর উপর বেসিক ধারণা রাখতে হবে।

লিখিত পরীক্ষার নির্ধারিত কোনো সিলেবাস নেই, যে কোন বিষয়ে প্রশ্ন হতে পারে। যারা ইতঃপূর্বে পাঠ্য বই ভালমত অনুশীলন করেছেন, তারা আবশ্যিক ভাবেই ভাল করবেন। পাশাপাশি উল্লিখিত বিষয়গুলোতে নিয়মিত অনুশীলনের মাধ্যমে নিজেকে প্রতিযোগীতার জন্য যোগ্য করে প্রস্তুত করতে হবে।

এছাড়াও বাংলাদেশ প্রসঙ্গ, পুলিশ বাহিনী ও সাম্প্রতিক বিষয়াবলী সম্পর্কে জানতে হবে।

মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষা :

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। এতে থাকবে ২০ নম্বর। এ ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত পরিচিতিমূলক প্রশ্নের পাশাপাশি প্রার্থীর মানসিক দক্ষতা, মূল্যবোধ বিচারের জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করা হয়।

তবে এতে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় প্রার্থীর কথা বলার ধরন, উপস্থাপনা। পোশাক হতে হবে মার্জিত। যে বিষয়ে জানতে চাওয়া হবে তার যথাযথ উত্তর দিতে হবে, অপ্রাসঙ্গিক কোনও কথা বলা যাবে না।

সকলের জন্য শুভকামনা। ♥