ঢাকাMonday , 23 August 2021

ইসলাম ধর্ম কখনো নারী বিরোধী নয় : ভারতীয় শিক্ষক তমাল ভট্টাচার্য্য

Link Copied!

অনলাইন ডেস্ক:: কাবুল ফেরত ভারতীয় শিক্ষক তমাল ভট্টাচার্য্য বলেছেন, ইসলাম কখনো নারী বিরোধী নয়। ইসলামই প্রথম আধুনিক ধর্ম যা নারীদের সমতার কথা বলেছে এবং এটাই সত্য। নারীদের উদ্দেশ্যে তালেবান বলেছে, আপনারা পড়াশুনা চাকরি সবই করতে পারবেন তবে নারী পুরুষ একসাথে ক্লাস করতে পারবে না।

সোমবার ভারতের বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন কাবুলে অবস্থিত কার্দান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পদার্থ ও রসায়নের সিনিয়র শিক্ষক তমাল ভট্টাচার্য্য।

এ দিকে বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারের একটি অংশ তাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করা হলে ভিডিওটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়।

এ সময় সাক্ষাৎকার নেয়া ওই সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় এই শিক্ষক বলেন, ‘কাবুল বিমানবন্দরে তালেবান নয় বরং আমেরিকান সৈন্যরাই গুলিয়েছে।’

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘কাবুল বিমানবন্দরে এখনো প্রায় ৬ হাজার আমেরিকান সৈন্য আছে। সেখানকার সাধারণ মানুষ আমেরিকা যাওয়ার উদ্দেশে বিমানবন্দরে জমায়েত করায় আমেরিকান বাহিনী ফাঁকা গুলি চালিয়েছে, যেন মানুষ সেখান থেকে সরে যায়।’

তমাল বলেন, ‘আমরা বাইরে থেকে তালেবানের ব্যাপারে যা জানি-শুনি, তা সম্পূর্ণ ভুল মনে হয়েছে। তালেবানরা আমাদের সঙ্গে অত্যন্ত ভালো আচরণ করেছে। আমাদের উদ্দেশে তারা বলেছে, তোমরা আমাদের মেহমান। তোমাদের নিরাপত্তার সব দায়িত্ব আমাদের। তারা আমাদেরকে খাবার দিয়েছে, নিরাপত্তা দিয়েছে।’

কাবুলের একটি আন্তর্জাতিক স্কুলে শিক্ষকতা করতেন তমাল ভট্টাচার্য। গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান যখন তালেবানের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়, তখন স্বাভাবিকভাবেই তীব্র দুশ্চিন্তা চেপে বসে কলকাতায় থাকা তমালের পরিবারের মধ্যে।

একদিকে ভারতীয় অন্যদিকে হিন্দু ছেলে, তাই তালেবান তার ওপর আক্রোশ দেখাবে, এমন ধারণাই ছিল সবার। কিন্তু তমাল ফিরে এসে দিলেন ভিন্ন বক্তব্য।

তমাল বলেন, ‘তালেবানরা কাউকে জ্বালাতন করেনি এবং তারা কোনো মানুষের ক্ষতি করেনি। তালেবানরা প্রথমে এসেই আমাদের বললো স্যার চিন্তা করবেন না আমরা আপনাদের কিছুই করবো না। আপনাদের আমরা হিফাজত করবো।’

কলকাতার সন্তান তমাল আরও বলেন, ‘শুধু ভরসা দিয়েই বসে থাকেনি তালেবান, বিদেশিদের মেহমান আখ্যা দিয়ে রাতে পাহারা দিয়েছে। আমাদের সঙ্গে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা যেসব নারী শিক্ষক ছিলেন, তাদেরকে বিন্দুমাত্র অসম্মান করেননি বরং সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দিয়েছেন।’

শিক্ষক তমাল ভট্টাচার্যকে জানান, ‘তালেবান সম্পূর্ণ নতুন একটা দেশ তৈরি করতে চাইছে। কতটা সত্যি জানি না। সময়ই সেটা প্রমাণ করবে।’

তমাল ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘আমরা বাসা থেকে বের হলেও তালেবান আমাদের সাথে যোদ্ধা পাঠাতো। শিক্ষকদের ব্যাপারে তালেবান অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল। কারণ তারা বলে, কোরআনে শিক্ষকদের সম্মানের ব্যাপারে বলা হয়েছে। তাই তারা আমাদের বলতো ওস্তাদ আপনারা বাইরে গেলে যোদ্ধাদের নিয়ে যাবেন। তবে বেশি দূরে কোথাও যাবেন না।’