ঢাকাFriday , 25 December 2020

ডিমের দাম কমেছে আলু-পেঁয়াজের সঙ্গে

অনলাইন ডেস্কঃ
December 25, 2020 9:49 am
Link Copied!

কিছুটা বাড়া’র পর আ’বারও কমেছে পেঁয়াজ ও নতুন আলুর দাম। সেই সঙ্গে কমেছে ডিমের দাম। সপ্তা’হের ব্যবধানে পেঁয়াজ ও নতুন আ’লুর দাম কেজিতে ১০ টাকা কমেছে। ডিমে’র দাম ডজ’নে কমেছে ১০ টাকা।

শুক্রবার রাজ’ধানীর বিভি’ন্ন বাজা’র ঘুরে দে’খা গেছে, পুরা’তন আ’লুর কেজি আগের মতো বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। তবে গত সপ্তা’হে দাম বেড়ে কে’জি ৫০ থেকে ৬০ টা’কা হওয়া নতু’ন আ’লুর দা’ম কমে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা’য় চলে এ’সেছে।

আলুর দা’মের বিষ’য়ে কার’ওয়ানবাজা’রের ব্যবসায়ী আবু’ল শেখ বলেন, ‘আলুর সরবরাহ কম থাকায় গত সপ্তাহে দাম একটু বেড়েছিল। এখন আ’বার আলুর সরবরাহ বেড়েছে। এ কারণে দামও কমেছে। আমাদের ধারণা কিছুদিনের মধ্যে নতুন আলুর দাম আরও কমবে।’

এদি’কে, আ’লুর মতো গত স’প্তাহে দাম বেড়ে যাওয়া পেঁয়া’জের দামও কিছু’টা কমেছে। গত সপ্তাহে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া দেশি পেঁয়া’জের দাম কমে ৫০ থেকে ৬০ টাকা হয়েছে। আমদানি করা পেঁয়াজ ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তা’হে ছিল ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

পেঁয়া’জের দাম কমার বিষয়ে কারওয়ানবাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী নোয়াব আলী বলেন, ‘বাজারে এখন পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে নতুন পেঁ’য়াজ আস’ছে। এ পেঁয়া’জের মা’নও বেশ ভালো। নতুন পেঁয়া’জের সরব’রাহ বা’ড়ায় দা’ম ক’মেছে। সা’মনে পেঁয়া’জের দাম আ’রও কমবে।’
আ’লু ও পেঁয়া’জের দাম কমার মধ্যে স্বস্তি দি’চ্ছে ডিম। সপ্তাহে’র ব্যবধা’নে ডি’মের দাম ডজনে ১০ টাকা কমেছে। গত সপ্তাহে ৯৫ টাকা ডজন বি’ক্রি হওয়া ডিম এখন ৮৫ টাকা’য় পাওয়া যাচ্ছে।

ডিমের দামে’র বি’ষয়ে মালি’বাগ হাজী’পাড়ার ব্যব’সায়ী মো. জাহা’ঙ্গীর বলেন, ‘বাজারে চা’হিদার তুল’নায় এখন ডিমের সরব’রাহ বেশি। ডি’মের আম’দানি (স’রবরাহ) বেশি হওয়া’য় এখন দাম কমেছে। তবে আ’মাদে’র ধারণা কিছুদি’নের মধ্যে ডি’মের দাম বে’ড়ে যাবে।’

ডিমে’র দাম কমা’য় কিছু’টা স্ব’স্তি প্রকা’শ ক’রে হাজী’পাড়ার বাসি’ন্দা আ’লেয়া বেগম বলেন, ‘গরু’র মাং’স আমা’দের মতো গরি’ব মানু’ষের ক’পাল থেকে উঠে গেছে। ৫৮০ টাকা’র নিচে গরুর মাং’সের কেজি পাও’য়া যায় না। এতো দা’ম দিয়ে গরুর মাংস কিনে খাওয়া সম্ভব না। মাছের দামও কম না। তাই ডিমই আমা’দের মতো গরি’ব মানু’ষের ভর’সা। ডি’মের দাম ক’মলে আ’মরা কিছু’টা হলেও স্বস্তি পাই।’

সব’জির বাজা’র ঘুরে দেখা গেছে, স’প্তাহের ব্য’বধানে শি’মের দাম কিছুটা বেড়ে মা’নভেদে কেজি বি’ক্রি হচ্ছে ৩০ থে’কে ৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ২০ থেকে ৩০ টাকা।

শি’মের দাম বাড়’লেও অপরি’বর্তিত রয়ে’ছে অন্যা’ন্য সবজি’র দাম। ফুলকপি ও বাঁধাকপি প্র’তিটি বি’ক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। মুলা ১০ থেকে ১৫ টাকা কেজি পাওয়া যাচ্ছে। ৪০ টা’কার মধ্যে পাও’য়া যা’চ্ছে বড় লাউ। গাজ’র বি’ক্রি হচ্ছে ৪০ থে’কে ৫০ টাকা কেজি। বেগু’নের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, উ’স্তের (করলা) কে’জি বি’ক্রি হ’চ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টা’কা।

সব’জির দামে’র বি’ষয়ে কারও’য়ানবা’জারে ব্যব’সায়ী মো. আলা’মিন বলেন, ‘বা’জারে এ’খন বি’চি শিম আ’সছে। এই শিমের চাহি’দা বেশি। এ কার’ণে দামও এ’কটু বেশি। ত’বে অন্যা’ন্য সব’জির দাম বা’ড়েনি। স’হসা সব’জির দাম বাড়া’র সম্ভা’বনাও কম। বরং সাম’নে দাম আ’রও কম’তে পারে।’
খি’লগাঁও’য়ের ব্যবসা’য়ী আ’জগর আলী বলে’ন, ‘বাজা’রে শি’ম, মুলা, ফুল’কপি, বাঁধা’কপি, শা’লগ’মের পর্যা’প্ত স’রব’রাহ রয়ে’ছে। এ কা’রণে ক্রেতা’রাও কম দা’মে সব’জি কিন’তে পারছেন। এতে আমাদের বি’ক্রি’ও বেড়েছে। মাস’খা’নেক আ’গে যা’রা এ’ক পো’য়া (২৫০ গ্রা’ম), আ’ধা কে’জি করে সব’জি কি’ন’তেন এ’খ’ন তা’রা কে’জি কে’জি সব’জি কি’ন’ছেন।’